মোঃ শেখ শহীদুল্লাহ্ আল আজাদ. স্টাফ রিপোর্টারঃ


খুলনা থেকে সরাসরি কোলকাতা”র উদ্দেশ্য আবারও চালু হলো ট্রেন বন্ধন


করোনার কারণে দীর্ঘ দুই বছর বন্ধ থাকার পর খুলনা-কলকাতা রুটে চালু হয়েছে ট্রেন ‘বন্ধন’ এক্সপ্রেস। আজ ২৯ মে রোববার সকালে কলকাতা থেকে ছেড়ে এসে দুপুরে খুলনা থেকে যাত্রী নিয়ে রওনা হয়েছে ট্রেনটি। দীর্ঘদিন পর যাত্রীরা খুলনা-কলকাতা সরাসরি যাতায়াত করতে পারছে। খুলনা রেল স্টেশন মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার বলেন, আজ রোববার সকাল ৭ টা ৪৫ মিনিটে ভারত থেকে ১৯ জন যাত্রী নিয়ে ছেড়ে আসে বন্ধন ট্রেন। ট্রেনটি দুপুর ১২ টা ৫০ মিনিটে খুলনা স্টেশনে এসে পৌছায়। কলকাতা থেকে ১৯ জন যাত্রী নিয়ে আসলেও খুলনা থেকে ৪৫ জন যাত্রী নিয়ে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে ‘বন্ধন এক্সপ্রেসটি’।
উক্ত বিষয়ে তিনি আরও বলেন, দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল ট্রেনটি। আজকের যাত্রায় যাত্রী কিছুটা কম রয়েছে।পরবর্তীতে যাত্রী আরও বাড়বে। প্রতি বৃহস্পতিবার ও রোববার দুই দিন খুলনা-কলকাতা রুটে ট্রেনটি চলাচল করবে। উক্ত ট্রেনের ভাড়া ও ভ্রমণ কর বিষয়ে তিনি বলেন, সবমিলিয়ে ট্রেনের এসি চেয়ার টিকিটের মূল্য ১ হাজার ৫৩৫ টাকা এবং কেবিনের ভাড়া ২ হাজার ২৫৫ টাকা। রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর কলকাতা-খুলনার মধ্যে ৪৫৬ আসনের ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ নামের আন্তর্জাতিক ট্রেনটি চলাচল শুরু হয়। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ ট্রেনে কেবিনে সিট ভাড়া দেড় হাজার ও চেয়ার কোচ ভাড়া এক হাজার টাকা। সঙ্গে যোগ হয় ৫০০ টাকার ভ্রমণ কর। বেনাপোল স্থলবন্দরে যাত্রীর পাসপোর্ট, ভিসাসহ ইমিগ্রেশনের যাবতীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়।এরপর যাত্রীরা সরাসরি খুলনা ও কলকাতার মধ্যে যাতায়াত করতে পারেন।ট্রেনটির ৪৫৬ আসনের মধ্যে ৩১২টি এসি চেয়ার ও ১৪৪টি প্রথম শ্রেণির আসন রয়েছে। কলকাতা–খুলনার মধ্যে দূরত্ব ১৭২ কিলোমিটার। এর মধ্যে বাংলাদেশে পড়েছে ৯৫ কিলোমিটার ও ভারতে পড়েছে ৭৭ কিলোমিটার। ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ সকাল ৭টা ১০ মিনিটে কলকাতা থেকে যাত্রী নিয়ে সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে বেনাপোল স্টেশনে পৌঁছাবে। পরে ইমিগ্রেশন কার্যক্রম শেষে সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে খুলনার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়ে পৌঁছাবে ১২টা ৩০ মিনিটে। খুলনা থেকে আবার যাত্রী নিয়ে দুপুর দেড় টায় রওনা দিয়ে বেনাপোল পৌঁছাবে বিকাল ৩টা ১৫ মিনিটে। পরে বেনাপোলে রেলওয়ে ইমিগ্রেশনে পাসপোর্টের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বিকাল ৪টা ১৫ মিনিটে রওনা দিয়ে কলকাতা পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে। খুলনা থেকে কলকাতার যাত্রী আসাদ শেখ বলেন, চিকিৎসার উদ্দেশ্যে কলকাতায় যাচ্ছি। চারজন ভাই-বন্ধু সফরে রয়েছি। ট্রেনের সি-৩ বগিতে রয়েছি। এই বগিতে আমরা চারজন যাত্রীই উঠেছি। আনন্দদায়ক ভ্রমণ এটা। তিনি বলেন, এসি চেয়ার সিটে জনপ্রতি সর্বমোট ১ হাজার ৫৩৫ টাকা ভাড়া নিয়েছে।অপরযাত্রী বিপ্লব বলেন, যাত্রাটা খুবই আনন্দের। কলকাতা যাওয়ার জন্য ট্রেন যাত্রা খুবই আরামদায়ক।উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে খুলনা-কলকাতা রুটে ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ চালু হয়। করোনা মহামারির কারনে ২০২০ সালের ১৫ মার্চ থেকে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে চলাচলকারী আন্তঃদেশী ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.