শামিম হাসান খান কুষ্টিয়া প্রতিনিধিঃ

কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলায় স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমার এরঁ ৪৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে জাতীয় শোক দিবস-২০২২ যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে ১৫ আগষ্ট সোমবার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও বে-সরকারি ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলন করা হয়। সকাল ৮.৩০ মিনিটে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স জাতীর পিতা বঙ্গবুন্ধ শেখ মুজিবুর রহমান এরঁ প্রতিকৃত্বে উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, খোকসা থানা পুলিশ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, পৌরসভা, উপজেলা অনলাইন প্রেসক্লাব, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগ ও সেচ্ছাসেবক লীগের পক্ষ থেকে পৃথক পৃথক ভাবে পুষ্পস্থবক অর্পণ করা হয়।

পুষ্পস্থবক অর্পণ করেন মাননীয় সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাব জর্জ এমপি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রিপন বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাবুল আক্তার, সাধারণ সম্পাদক তারিকুল ইসলাম তারিক, সহকারী ভূমি কর্মকর্তা ইসাক হক আলি, থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক, ১ নং খোকসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক ৭ নং গোপগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোতালেব হোসেন সহ সরকারি ও বে-সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারী, জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা ও বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ। পরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ তাঁর পরিবারের নিহত সকল সদস্যদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

পুষ্পস্থবক অর্পণ শেষে খোকসার সরকারি কলেজ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রিপন বিশ্বাস এর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খোকসা কুমারখালী ৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাব জজ এমপি, বিশেষ অতিথি বাবুল আক্তার, আল মাসুম মোরশেদ শান্ত, দলীয় নেতাকর্মী ও বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। এরপর যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উদ্যোগে যুব ঋণের চেক বিতরণ করা হয়।

এছাড়া উপজেলা পরিষদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ, পৌর আওয়ামী লীগ ও বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সংগঠনের পক্ষ থেকে পৃথক পৃথক ভাবে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও কাঙ্গালী ভোজের আয়োজন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!