সাজেদুর রহমান সাজ্জাদ:

নাটোরের গুরুদাসপুর পৌরসদরের আনন্দ নগর মহল্লায় এক কৃষকের ঘর থেকে ২৪টি গোখরা সাপের বাচ্চা ও ১টি মা সাপ উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা। বুধবার (২৭ জুলাই) শেষ বিকেলে কৃষক সৈয়দ আলীর শোয়ার ঘরের মেঝে খুঁড়ে সাপগুলো পাওয়া যায়। সৈয়দ আলী ওই মহল্লার মৃত সাদেক আলীর ছেলে। এ ঘটনায় আতঙ্ক বিরাজ করছে স্থানীয়দের মধ্যে।

স্থানীয়রা জানান, গত সোমবার সকালে কৃষক সৈয়দ আলীর স্ত্রী মেঝে ঝাড়– দিতে গিয়ে সাপের খোলস দেখতে পান। ওইদিন ভোররাতে তার নাতনিকে সাপে কাটলে তিনি স্থানীয় ওঝা দিয়ে বিষমুক্ত করে নেন। পরে স্থানীয়দের পরামর্শে সাপের উপদ্রব থেকে বাঁচতে তিনি খাটের নিচে কার্বলিক এসিড রেখে দেন। বুধবার বিকালে কৃষক সৈয়দ আলী মেঝেতে একটি সাপের বাচ্চা দেখতে পেয়ে প্রতিবেশীদের খবর দেন। পরে এলাকাবাসী মেঝে খুঁড়তে থাকলে একের পর এক সাপের বাচ্চাগুলো বের হয়ে আসতে থাকে। একসময় মা সাপটিও বেরিয়ে এলে আতঙ্কিত এলাকাবাসী তাঁর কামড় থেকে বাঁচতে সেটি মেরে ফেলেন। পরে ওই সাপগুলো মাটিচাপা দেয়া হয়।

 

সৈয়দ আলী জানান,সাপের বাচ্চাগুলো কোদাল ও সাবলের আঘাতে মারা গেলেও মা সাপটিকে মেরে ফেলা হয়েছে। আমরা খুব ভয়ে ও আতঙ্কে আছি। ধারনা করছি ঘরে আরও সাপ আছে।

স্থানীয় পরিবেশকর্মী নাজমুল হাসান জানান,বন্যপ্রানী ও পরিবেশ আইনে সাপ মারা অপরাধ। কোথাও সাপ দেখা গেলে স্থানীয় পরিবেশকর্মী কিংবা বনবিভাগকে জানালে তারা উদ্ধার করে যথাস্থানে অবমুক্ত করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.