এমদাদুল হক মাসুম,ডোমার প্রতিনিধিঃ
ঢাকা থেকে সরাসরি মিতালি এক্সপ্রেস ১লা জুন থেকে ভারত ও বাংলাদেশের হলদিবাড়ী চিলাহাটি সীমান্ত দিয়ে চলাচল করবে।
ট্রেনটির প্রথম যাত্রা হবে পশ্চিম বাংলার নিউ জলপাইগুড়ি ষ্টেশন হতে এবং বাংলাদেশের নীলফামারী জেলার চিলাহাটি ও ভারতের কুচবিহার জেলার হলদিবাড়ী সীমান্ত দিয়ে।
গত বছর ২৭মার্চ এই ট্রেনের উদ্ভোধন করেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদী। মাঝে করোনা পরিস্থিতির কারনে এই ট্রেন চালু সম্ভব হয়নি। বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন ও ভারতের রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব, ভার্চুয়ালী মিতালি এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা উদ্ভোধন করবেন।
রেল সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা থেকে ভারতের নিউ জলপাইগুড়ির দুরুত্ব ৫৯৫ কি.মি এর মধ্যে ভারতের অংশে ৬৯ কি.মিঃ। মিতালি এক্সপ্রেস ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ছাড়বে ১লা জুন রবিবার দুপুর ১২.১০ মিনিটে, চিলাহাটি এসে ৩০ মি. বিরতি দিয়ে ঢাকা ক্যান্টনম্যান্ট ষ্টেশনে পৌছবে রাত ১০.৩০ মিনিটে। পরদিন সোমবার ট্রেনটি ক্যান্টেনময়ান্ট ষ্টেশন থেকে রাত ৯.৫০ মি: ছেড়ে ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি পৌছবে সকাল ৭ টা ৫ মিনিটে। ভারত থেকে সপ্তাহে রবি, বুধ ও বাংলাদেশ থেকে সোম ও বৃহস্পতিবার চলাচল করবে। ট্রেনটি দিনে ৪৫৬ আসন এবং রাতে ৪০৮ আসন নিয়ে চলাচল করবে। মিতালি এক্সপ্রেসে থাকছে ১০ টি তাপানুকুল কোচ, এর মধ্যে ৪টি করে ৮টি এসি ফাস্টক্লাস ও এসি চেয়ার কোচ, দুইটি জেনারেটর ও ব্রেকআপ ভ্যান।
ঢাকা থেকে নিউ জলপাইগুড়ি পর্যন্ত ভাড়া এসি বাথ ৪৯০৫ টাকা, এসি ছিট ৩৮০৫, এসি চেয়ার ২০৭৫, চিলাহাটি থেকে নিউ জলাপাইগুড়ি ১২৫০ টাকা। এই ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাবে বাংলাদেশ অংশে ঢাকা কমলাপুর, চট্টগ্রাম ও নীলফামারীর চিলাহাটি ষ্টেশনে। ভারত অংশে টিকিট মিলবে কলকাতা ফেয়ারলী প্যালেস ও জলপাইগুড়ি ষ্টেশনে। মিতালি এক্সপ্রেসে চিলাহাটির জন্য আলাদা দুটি কোচ বরাদ্দ থাকবে। এখানে রংপুর ও দিনজপুর জেলার যাত্রীরা চিলাহাটি থেকে ভ্রমন করতে পারবেন। ভারত সরকারের প্রট্রোকল অনুসারে ভ্রমনকারী যাত্রার ৭২ ঘন্টা আগে আরপিসি আর কোভিট টেষ্ট বা দুই ডোজ টিকা গ্রহনের সনদ থাকতে হবে।
বাংলাদেশ রেলওয়ের মহা ব্যবস্থাপক (পশ্চিম) অসিম কুমার তালুকদার বলেন, ভিসাসহ অন্যান্য জটিলতা অবসান হওয়ায় ঢাকা, জলপাইগুড়ি ট্রেন চলাচলের সকল প্রস্তুতি সম্পূর্ন করেছি। কোচ সংকটের কারনে আপাতত মিতালি এক্সপ্রেস ভারতীয় কোচ দিয়ে চলাচল করবে।
১৯৪৭ সালে স্বাধীনতার পর মালবাহী গাড়ি ও পাসপোর্ট ধারী যাত্রী নিয়ে একটি ট্রেন চিলাহাটি, হলদিবাড়ী যাতায়াত করলেও ১৯৬৫ সালের যুদ্ধে তা বন্ধ হয়ে যায়। এরপর এমিগ্রেশন কাষ্টম চালু ছিল পাসপোর্ট ধারী যাত্রীদের জন্য, কিন্তু ২০০৪ সালে ভারত সরকার সেটাও বন্ধ করে দেয়। দীর্ঘ ৫৮ বছর পর আবার বাংলাদেশ, ভারত ট্রেন যোগাযোগ চালু হতে যাচ্ছে। এই ট্রেন চালু হলে দুই দেশের সম্পর্কে নতুন দিগন্ত উন্মোচন হবে বলে জানিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা।
উল্লেখ্য, মিতালি এক্সপ্রেস বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে তৃতীয় যোগাযোকারী ট্রেন। এর আগে করোনার কারনে মৈত্রী ও বন্ধন এক্সপ্রেস ২০২০ সালের ১৫ মার্চ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

#

Leave a Reply

Your email address will not be published.