received 383611461279479



রাজশাহী ব্যুরো:
“ক্ষতিপুরন না দিলে, কাউকে যেতে দিবনা”। এমন হুমকি দিয়ে সরকারি জমি উদ্ধারে বাধা দিচ্ছিলেন নগরীর কাজলা এলাকার মানিক গং। প্রশ্ন, কে এই মানিক?

রবিবার (৩ মার্চ ২৪) সকাল ১০ টার দিকে সরকারি জমিতে বেড়া দেওয়ার সময় এমন ঘটনা ঘটেছে নগরীর কাজলা মোড়ের পার্শ্বে সড়ক ও জনপথের জমিতে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন পাশের জমির মালিক রাজশাহী নগরীর কাজলা এলাকার (রেডিও সেন্টারের উত্তর পশ্চিম কর্ণার) লাল মোহাম্মদ এর ছেলে মানিক (৫২) ও ছোট ভাই ইদ্রিস (৫০)। সড়ক জনপথের জমি উদ্ধারে এই মানিক গং দীর্ঘদিন থেকে বাধা দিয়ে আসছেন। আজকেও সড়ক জনপথের কাজে বাধা প্রদানের মুলহোতা এই মানিক গং। তাদের সাথে কথা বলে জানা গেল, সিটি কর্পোরেশনের ড্রেনের পাশ দিয়ে ওয়াসার পানির পাইপ ছিল। যা সড়ক জনপথের জমির উপর দিয়ে। অবশ্য সেই পাইপটি পাশের ভবনের পানির লাইন। সড়ক জনপথের কাজের সময় পাইপ ফেটে যায়। এতে বড় বাধা হয়ে দাঁড়ায় মানিক গং। এরপর খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে যান সড়ক ও জনপথ রাজশাহীর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী রেজওয়ানা করিম। গাড়ি থেকে নামতেই শুরু হয় বাক বিতন্ডা। অশালীন আচরনের মুখে পড়েন তিনি। মানিক গং এর দাবী জমি পরিমাপ না করে আমরা বেড়া দিতে দিবনা। পরিবেশ বুঝে তিনি তাদের আশ্বস্থ করেন। সড়ক জনপথ জমি পরিমাপ করে বেড়া বা বাউন্ডারি দিবে। এসময় সাংবাদিক বিষয়টি জানতে চাইলে তার সাথেও খারাপ আচরন করেন মানিক।
বিষয়টি নিয়ে সড়ক ও জনপথ রাজশাহীর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী রেজওয়ানা করিম এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, কাজলার এই জায়গায় আমাদের প্রায় ৩৩ শতক জমি রয়েছে। জমিটিকে কাজে লাগানোর উদ্দেশ্যে আমরা বেড়া দিচ্ছি। কিন্তু এখানে কিছু লোক সরকারি কাজে বাধা দিতে আসছেন। পরে পরিবেশ বুঝতে পেরে বাইরের লোকগুলো শটকে পড়ে। তবে আগামীতে সার্ভেয়ারের মাধ্যমে জমি পরিমাপ করে বেড়া দেওয়া হবে।
বিষয়টি নিয়ে সড়ক জনপথ রাজশাহীর নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল হাকিম এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমি জেনেছি, আমাদের একজন কর্মকর্তার সাথে অশালীন আচরন করেছেন অজ্ঞাত স্থানীয় কিছু লোকজন। আমরা আরেকটি তারিখ নির্ধারন করে জমিটিতে বেড়া দিব। তবে এই জমিটিকে কুক্ষিগত করতে দীর্ঘদিন থেকে একটি মহল কাজ করছে। এর সাথে যুক্ত আছে নাম সর্বোস্ব, ডটকম পত্রিকার কয়েকজন সাংবাদিক। এর আগেও তাদের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ রয়েছে। তবে সরকারি জমি ব্যবহার করতে হলে সওজ এর ২০১৫ সালের ভুমি ব্যবস্থাপনা নীতিমালা অনুযায়ী সরকারি জমি ব্যবহারের জন্য লীজ নেওয়ার নিয়ম রয়েছে । তারাও চাইলে নিয়ম মেনে লীজ নিতে পারবেন।

উল্লেখ, এর আগেও সড়ক জনপথের এই জমি নিয়ে অনেক পত্রিকাতে লিখালিখি হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, সরকারি জমি কব্জা করতে মানিক গং এর সক্রিয়তা নিয়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *