শেরপুর প্রতিনিধিঃ
শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মনির হোসেন নামের এক যুবককে কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করার অভিযোগ উঠেছে। ১ জুন বুধবার সকালে উপজেলার নলকুড়া ইউনিয়নের ফুলহারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মনির হোসেন ওই গ্রামের মরহুম সিরাজুল হকের ছোট ছেলে। সরেজমিনে গেলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মরহুম সিরাজুল ইসলামের পরিবারের বসত ভিটার জমাজমি নিয়ে একই গ্রামের প্রভাবশালী কেরামত আলী মাস্টারদের সাথে জমির সীমানা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছিল। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পরিকল্পিত ভাবে কেরামত আলী মাস্টার গংরা, মনির হোসেনের বাড়ি সংলগ্ন দক্ষিণ পাশে সীমানায় এসে মনির হোসেনের জমিতে থাকা গাছ গুলি কাটার জন্য গাল মন্দ করে। এমতাবস্থায় মনির হোসেন তাদের গালমন্দ করা নিষেধ করলে সাথে সাথে কেরামত আলী মাস্টারের গংরা উত্তেজিত হয়। এবং দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে মনির হোসেনকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করে। এসময় ফিরফার করতে আসা স্থানীয় বাদশা মিয়ার স্ত্রী সাথী বেগমসহ আরও কয়েকজন তাদের হামলার শিকার হয়। পরে স্থানীয়রা মনির হোসেনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঝিনাইগাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। কিন্তু মনিরের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য শেরপুর সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন। এদিকে মনির হোসেনের বড় ভাই বাদশা মিয়া বাদী হয়ে, এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকা ৫ জনকে আসামী করে ঝিনাইগাতী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল আলম ভুইয়া এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছেন বলে সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


Leave a Reply

Your email address will not be published.