———————————————————হাকিকুল ইসলাম খোকন ,যুক্তরাষ্ট্র সিনিয়র প্রতিনিধিঃ
যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বন্দুকধারীর গুলিতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৯ শিশু শিক্ষার্থীসহ অন্তত ২১ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এতে গুরুতর আহত হয়েছেন আরও কিছু লোক। প্রাথমিকভাবে ১৫ জন নিহতের কথা জানানো হলেও পরবর্তীকালে তা বেড়ে ২১ জনে দাঁড়ায়।

বুধবার (২৫ মে) অঙ্গরাজ্যটির গভর্নর গ্রেগ অ্যাবটের বরাতে আন্তর্জাতিক মিডিয়া বিবিসি নিউজ প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে তথ্যটি নিশ্চিত করেছে।

গভর্নর গ্রেগ অ্যাবটের জানিয়েছেন, মঙ্গলবার (২৪ মে) স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে টেক্সাসেস রব এলিমেন্টারি স্কুলে হামলার ঘটনাটি ঘটে। স্কুলটি আমেরিকার সপ্তম বৃহত্তম শহর সান আন্তোনিও থেকে প্রায় ৮৩ মাইল (১৩৩ কি.মি.) পশ্চিমে অবস্থিত। এটি একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়। সেখানকার শিক্ষার্থীদের বয়স পাঁচ থেকে ১০ বছরের মধ্যে।

অ্যাবট আরও জানান, বন্দুকধারী ওই ১৮ বছর বয়সী হামলাকারীর নাম সালভাদর রামোস। তিনি ওই এলাকারই বাসিন্দা। তিনি শুটিংয়ের সময় একটি হ্যান্ডগান এবং সম্ভবত একটি রাইফেল ব্যবহার করেছিলেন। যদিও এটি এখন পর্যন্ত পুরোপুরি নিশ্চিত নয়।এ দিকে স্থানীয় গভর্নর গ্রেগ অ্যাবট এবং তার স্ত্রী সিসিলিয়া হতাহতদের পরিবারের প্রতি গভীর শোক এবং সমবেদনা জানিয়েছেন। এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঠেকাতে তিনি টেক্সাসের বাসিন্দাদের একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

অপর দিকে ঘটনাস্থলেই বন্দুকধারী রামোস প্রাণ হারিয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, ঘটনাস্থলে পাঠানো পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। এছাড়াও গুলি বিনিময়ের সময় দুই পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন। বর্তমানে তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থাতে থাকলেও তারা এখন আশঙ্কামুক্ত।

স্থানীয় পুলিশের দাবি, বন্দুকধারীর গুলিতে শিশুসহ আরও অনেক লোক আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন ৬৬ বছর বয়সী নারী এবং একজন ১০ বছর বয়সী শিশু আন্তোনিওর বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বর্তমানে তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক।উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে টেক্সাসের স্কুলে গুলি চালানোর বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় হোয়াইট হাউসে তিনি বিষয়টি নিয়ে কথা বলবেন বলে তার প্রেস সেক্রেটারি কারিন জিন-পিয়েরে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.