মাদরাসার হেফজখানার আবাসিক বিভাগের ০৮ বছর বয়সের ছাত্রকে দিনের পর দিদাগনভূঁঞান বলৎকার করা মাদ্রাসার শিক্ষক গ্রেফতার।

দাগনভূঁঞা থানাধীন ২নং রাজাপুর ইউপির মঈনুল ইসলামিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার ০৮ বছর বয়সের ০১টি শিশুকে বিভিন্ন সময়ে কৌশলে একই মাদ্রাসার হেফজখানা বিভাগের শিক্ষক অভিযুক্ত আব্দুল জলিল(২১) পিতা-আবু ছায়েদ, মাতা-আলেয়া বেগম ,স্থায়ী: গ্রাম- ইসলামপুর, থানা পাড়া (বটগাছ তলা, পোষ্ট-গুইমারা), থানা- গুইমারা, জেলা –খাগড়াছড়ি বলৎকার করিয়া আসিতেছিল মর্মে শিশুটির পিতা মামলা দায়ের করেন। দাগনভূঁঞা থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ হাসান ইমাম বিশেষ দিক নির্দেশনা প্রদান করিয়া মামলা দায়েরের অতি অল্প সময়ের মধ্যে অর্থাৎ ইংরেজী ২২/০৭/২০২২ইং তারিখ রাত ০১.৩০ ঘটিকার সময়ে মঈনুল ইসলামিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার হেফজ বিভাগের শিক্ষক অভিযুক্ত আব্দুল জলিলকে গ্রেফতার করেন। আসামীকে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
শিশুটিকে জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনার বিস্তারিত খুলে বলে এবং তাহাকে বিভিন্ন ধর্মীয় কসম ও শ্রেনীকক্ষে মারধরের ভয় দেখাইয়া অভিযুক্ত শিক্ষক আব্দুল জলিল শিশুটির সহিত এরুপ কর্মকান্ড করিত মর্মে জানায়। হুজুর যা বলে তাই সঠিক এবং হুজুর যা করে তাই স্বাভাবিক বলিয়া শিশুটির মনে বিভিন্ন ভ্রান্ত ধারণা প্রদান করিয়া শিশুটির সহিত বলৎকারে লিপ্ত হইত অভিযুক্ত আব্দুল জলিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.