received 882492900007599

তাইয়েব ইবনে ফারুকী, ভালুকা,ময়মনসিংহ 

শীত মানেই পিঠা পুলির আমেজ, নানি- দাদির হাতের বানানো মাজার পিঠা। নতুন ধানের মুহুমুহু গন্ধে মাতোয়ারা হয়ে উঠেছে জেলা, উপজেলা, পাড়া মহল্লা তথা সারা বাংলাদেশ। নতুন ধানের চালে পিঠা-পুলি তৈরীর হিড়িক পড়েছে বাংলার ঘরে ঘরে। এরই মাঝে  প্রত্যান্ত এলাকাতে দেখা দিয়েছে নবান্নের অফুরন্ত আমেজ। মজাদার পিঠার আনন্দ উৎসব বয়ে চলছে বাংলার প্রতি ঘরে ঘরে। বেশ কিছুদিন ধরে নতুন ধানের চাল পিষিয়ে শীতের ঐতিহ্যবাহী ভাপাপিঠাসহ হরেক রকমের পিঠাপুলি তৈরী করে যাচ্ছেন পরিবারের মেয়ে সদস্যরা।

সারা দেশ জুড়ে নতুন চাল দিয়ে পিঠা পুলি পায়েশ নানা ধরনের শীতের মুখরোচক খাবার  এবং নতুন নতুন খেজুরের রস দিয়ে নতুন গুড় ও আখের রস গুড় খাবা এবং পরিবার পরিজনদেরকে আত্মীয়-স্বজন  বিতরণ চলছে  নবান্ন ছাড়া কনকনে শীতে প্রত্যন্ত এলাকার বহুজন নতুন চাল দিয়ে হরেক রকমের পিঠা তৈরী করে শীত পিঠার আয়োজনও করে।

ভালুকার বিভিন্ন গ্রামের এলাকাবাসী জানান শীত মৌসুমে পিঠার মহাউৎসব যেন পাড়া মহল্লায়। বাড়ীতে বড়ীতে নতুন ধানের চালে পিঠা,পুলি পায়েশ তৈরী আয়োজন চলছে এবং সবাইকে দাওয়াত করে খাওয়ানোর মহাউৎসব ও চলমান। 

গ্রামের মানুষ জানান, প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও মা দাদি শীত পিঠা তৈরী করছেন। বাড়ীর সকলের এক সাথে বসে আনন্দের সাথে খাওয়ার এটি এক অসাধারণ  অনূভূতি ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। 

খারুয়ালি গ্রামের ধান চাষী জানান, নবান্ন উপলক্ষে নানা জাতের ধান কাটা হচ্ছে, নতুন ধানের চাল দিয়ে নবান্ন উৎসব,পিঠা পুলি তৈরী চলছে ঘরে ঘরে।

চলতি শীত মৌসুমে বাড়ীতে নতুন চাল দিয়ে ভাপাপিঠা,তেলের পিঠা, পুলি পিঠা  তৈরী করে পরিবারের সবাইকে শীত পিঠা খাওয়ার  মজায়  আলাদা। 

গ্রাম বাংলার এই পিঠাপুলির আয়োজন বাংলাদেশের প্রাচীন ঐতিহ্য, এই ঐতিহ্য আমাদের পরিবার এবং সমাজব্যবস্থাকে করেছে সুদৃঢ়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *