received 3708091979466907

মোঃ শিশির আলী
স্টাফ রিপোর্টার
কুষ্টিয়া (দৌলতপুর)

কুষ্টিয়া দৌলতপুরে হোগলবাড়ি ইউনিয়নে তারাগুনিয়া মধ্যে বাজার সংলগ্ন কালু শেখের ছেলে শাহজাহানের স্ত্রী লাবনী আক্তার (২৬) কে হত্যা করেছে বলে দাবি করেছে লাবনীর মা, তার পরিবার ও আত্মীয় সজন। গত ১১/৩/২৪ রোজ সোমবার ভোর চার টার সময় তার নিজ বাড়ি থেকে উদ্ধার করছে দৌলতপুর থানা পুলিশ।পারিবারিক সূত্রে জানা যায়,লাবনী আক্তার অনেক আগে থেকেই নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছে।
তার কন্যা জানাই আমার মাকে আমার দাদা অনেক আগে থেকেই মার ধর করত।আমার মা মুখ বুজে সব হজম করত। গ্রামের লোকজন বলেন অনেক আগে থেকেই তার শুশুর কালু শেখ (৭৫) তার বৌমার উপর হাল অত্যাচার করে আসছে। গ্রামের লোকজন এদের কান্ড কারবার দেখে দেখে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। কিন্তু আজ লাবনী আক্তার (২৬) কে বলি হতে হল গলাই দড়ি দিয়ে।
ঐগ্রামের লোকজনের সন্দেহ যে খানে গলাই দড়ি দিয়েছে তার দুই পা ভাজ ছিল, কি করে তার গলাই দড়ি দিয়ে মৃত্যু হয়।পায়খানার ভিরতে যার মাথা বেধে যায় তার আবার কি করে মৃত্যু হতে পারে। সকালের ধারণা তাকে মেরে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। মৃত লাবনীর গলাই দাগ সহ তার শরীলের বিভিন্ন জায়গায় অত্যাচারের চিহ্ন পাওয়া গেছে বলে জানান তার আত্মীয় সজন। ঐওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার বলেন, লাবনীর মত মেয়ে হয় না আমি কয়েক বছর ধরে শুনে আসছি তার শুশুর কালু শেখ তাকে নির্মম ভাবে হাল অত্যাচার করে।কিন্তু লাবনী তার স্বামীকে সব কিছু জানালে স্বামী সব কিছু সইতে থাকে, তার বাবা কে কিছুই বলে না। লাবনীর মা সময়ের কাগজ কে বলেন, আমার মেয়েকে শারিরীক অত্যাচার ও গলাই ফাঁস দিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে। লাবনীর চাচা ও চাচীসহ চাচাতো ভাইদের বক্তব্যে আমার চাচাতো বোন কে মেরে ফেলা হয়েছে। এবিষয়ে দৌলতপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলার অভিযোগ করা হয়েছে।
দৌলতপুর থানার দায়িত্ব রত ওসি রফিকুল ইসলাম তিনি বলেন,লাশটি মর্গে প্ররণ করা হয়েছে। সঠিক তথ্যও রিপোর্ট, অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নেবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *