মোঃ ইকবাল মোরশেদ স্টাফ রিপোর্টার।

নাঙ্গলকোটে সাতবাড়িয়া গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রোববারে ইউপি চেয়ারম্যান টুটুলের ঢাকা শালিস অবস্থায় দীর্ঘ মারামারি সৃষ্টি হয়,

ঘটনা জানা যায় সাতবাড়িয়া গ্রামে ডাকাতিয়া নদীর ধারে মোঃ জুয়েল ও তার ভাই বহুদিন যাবত বসবাস করে আসছে এবং তাদের বাড়ির পাশে লোকজনের চলাচলের জন্য রাস্তা করে দিয়েছে।

কিন্তু ওই ওইএলাকার শফিকুর রহমানের ছেলে মোঃ বাহাদুর,বাহাদুরের নাতি মাসুদ,মোঃ আবুল কালাম সহ আরো লোকজন নিয়ে তাদের বাড়ির উপর দিয়ে হাঁটার চেষ্টা করলে বাধা সৃষ্টি হয়,

এক পর্যায়ে ওই এলাকার ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ টুটুল ওই ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ শাহ আলমকে দিয়ে ঐ পক্ষকে দরবারের সালিশের দাওয়াত দেয় এরপরে সালিশে বসলে মোঃ জুয়েল তার অভিযোগ বলা শুরু করেন ওই অভিযোগ বলা অবস্থায় শফিকুর রহমানের ছেলে মোঃ বাহাদুর এবং বাহাদুরের নাতি মাসুদ এবং মোঃ কালাম সহ আনুমানিক আরো ২০-৩০ জন লোক জননিয়ে লাঠিচোটা ও অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়।

একপর্যায়ে লাঠি ছোটা দিয়ে দীর্ঘক্ষন মারামারি হয় এবং এতে অনেক লোকজন আহত হয় পাঁচ ৫ জন গুরুতর অবস্থায় নাঙ্গলকোট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভর্তি করা হয়েছে।
নাঙ্গলকোট থানার ওসি মোঃ ফারুক হোসেন বলেন ঘটনা সত্য তবে অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.