এম শাহজাহান মিয়া শেরপুর প্রতিনিধিঃ
শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় মালিঝিকান্দা ইউনিয়নের রাঙ্গামাটিয়া পূর্বপাড়া এলাকার আঃ মালেকের ছেলে বাক প্রতিবন্ধী নিখোঁজ কিশোর শান্ত মিয়া (১৫) কে দীর্ঘ ১৪ মাস পর খুঁজে পেল তার পরিবার। ২০ জুলাই বুধবার জামালপুর সরকারী শেখ রাসেল শিশু পরিবার থেকে শান্তকে পিতা আঃ মালেকের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পুলিশ ও শান্ত মিয়ার পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বিগত ১৭/০৫/২০২১ ইং শান্ত মিয়া বাড়ির পাশের রাঙ্গামাটিয়া নতুন বাজার এলাকা থেকে নিখোঁজ হয়। ৩ দিন ধরে আত্বীয় স্বজনের বাড়ি সহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও শান্ত মিয়ার সন্ধান না পেয়ে ২০/০৫/২০২১ ইং ঝিনাইগাতী থানায় মিসিং ডায়েরী করেন পিতা আঃ মালেক। এদিকে বিয়টির দায়িত্ব পেয়ে মালিঝিকান্দা ইউনিয়নের বিট অফিসার এসআই মাসুদ রানা ছেলেটির সন্ধান পেতে ঐকান্তিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যান। তিনি দেশের সকল থানায় বেতার বার্তা পাঠান। এছাড়াও তার সন্ধান পেতে সহযোগীতা চেয়ে আশেপাশের ১৭ টি থানায় ছবি সহ বার্তা পাঠানো হয়। শান্ত’র পিতাকে সঙ্গে নিয়ে তিনি জামালপুর সরকারী শেখ রাসেল শিশু পরিবারে গিয়েও সন্ধান করেন।
এদিকে শান্ত’র পিতা এবং নানা সহ পরিবারের সদস্যরা শান্ত’কে খুঁজে পেতে নাড়ায়নগঞ্জ, ঢাকা মিরপুর, গাজিপুর চৌরাস্তা সহ বিভিন্ন জেলায় শিশু পূণর্বাসন কেন্দ্র ও এতিমখানায় গিয়েও খুঁজে না পেয়ে এক পর্যায়ে হাল ছেড়ে দেন। অবশেষে ছবি ও জিডির অনুলিপি সহ কদিন আগে আবারও জামালপুর শেখ রাসেল শিশু পরিবারে খুঁজতে গিয়ে শান্ত’র সন্ধান পান পিতা আঃ মালেক। তাদের কাছেই জানতে পারেন যে, নিখোঁজ হওয়ার দের মাস পর জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শান্তকে মাদারগঞ্জে ঘোরাঘুরি করতে দেখে তাঁর হেফাজতে নেন। কিন্তু প্রতিবন্ধী শান্ত কথা বলতে পারে না এবং নিজের নাম ঠিকানাও বলতে পারে না। অবশেষে অজ্ঞাতপরিচয় হিসেবে তিনি শান্তকে জামালপুর শেখ রাসেল শিশু পরিবারে ভর্তি করে রেখে যান। এদিকে শিশু সদন কর্তৃপক্ষের পরামর্শে আঃ মালেক ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র সহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে ২০ জুলাই শান্তকে উদ্ধার করে এনে ঝিনাইগাতী থানায় ছেলেকে খুঁজে পাওয়ার বিষয়ে জিডি করে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসেন। সরেজমিন গিয়ে দেখা যায় শান্তকে দীর্ঘদিন পর খুঁজে পেয়ে তার পুরো পরিবারে আনন্দ বইছে এবং প্রতিবেশীরা তাকে দেখতে বাড়িতে ভিড় করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.