মোঃ ইকবাল মোরশেদ স্টাফ রিপোর্টার।

নোয়াখালী সদর উপজেলায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে (১৭) ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মোঃ ইব্রাহিম খলিল হৃদয় (১৯) নামের এক অটোরিকশাচালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (৭ জুন) সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। গ্রেফতার খলিল নোয়াখালী পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের মধুপুর গ্রামের ঘড়ি মেকার বাড়ির মোঃ আবদুর রহিমের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ করেন খলিল। ১২ মে মাইজদী হাউজিং এলাকায় নিয়ে ধর্ষণের পর হত্যার উদ্দেশ্যে কিশোরীর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন তিনি।
এতে তার পেছনের সম্পূর্ণ অংশ পুড়ে যায়।
সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ভুক্তভোগীর মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে থানায় মামলা রুজু হয়।
আসামিকে গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ভুক্তভোগী কিশোরীকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম বলেন, ভুক্তভোগী কিশোরীকে মহিলা সার্জারি ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

নোয়াখালী সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মোঃ হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘তরুণীর শরীরের ২৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। পোড়ায় ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে। তার ড্রেসিং শুরু হয়েছে।
দুদিন পর্যবেক্ষণের পর চিকিৎসার ব্যাপারে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.