সোহেল রানা
গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি:

প্রয়াত সংসদ সদস্য, সাবেক প্রতিমন্ত্রী, নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা ও বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব অধ্যাপক মোঃ আব্দুল কুদ্দুসের রেখে যাওয়া উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডসহ অসমাপ্ত সব কাজ সমাপ্ত করতে চান তার যোগ্য মেয়ে এ্যাড. কোহেলী কুদ্দুস মুক্তি।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনে এ্যাড. কোহেলী কুদ্দুস মুক্তিকে দলীয় মনোনয়ন দেন তাহলে তিনি আশাবাদী নির্বাচনী এলাকার মানুষ এ অঞ্চলের উন্নয়নের স্বার্থে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে তাকে ভোট দিয়ে বিপুল ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত করবেন।

পাঁচ বারের নির্বাচিত এমপি প্রয়াত অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুসের মেয়ে বলেন, দেশ স্বাধীনের পর তাঁর বাবা আওয়ামী লীগের এমপি-মন্ত্রী হয়ে তার নির্বাচনী এলাকাকে যে পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন, তিনি যদি আর কিছু সময় পেতেন তাহলে এ অঞ্চলের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন, শিল্প ও কৃষি বিপ্লব এবং জীবনমানের আরো পরিবর্তন নিশ্চিত করতেন। তাঁর অসমাপ্ত এই কাজগুলোর পাশাপাশি এই নির্বাচনী এলাকাকে আরো আধুনিক, যুগোপযোগী, উন্নয়নমুখী, কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ আধুনিক বিপ্লব ঘটাতে চান সাবেক যুবমহিলা লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ও বর্তমান নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মুক্তি।

গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম উপজেলায় প্রায় শতভাগ পাকারাস্তা, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা, নানা ধরনের উন্নয়নসহ সরকারের সহযোগিতায় অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। আর এসব সম্ভবের পেছনের কারিগর ছিলেন তার বাবা অধ্যাপক মোঃ আব্দুল কুদ্দুস।

জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দিলে গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রামের জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করাবে। দুই উপজেলার জনগণের ভালোবাসা নিয়ে বাবার অসমাপ্ত কাজগুলো শান্তিপূর্ণভাবে সমাপ্ত করতে চাই। সেই সাথে গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রামে আধুনিকায়নে ঢেলে সাজানো, আরো বেশি ব্রিজ নির্মাণ, নির্বাচনী এলাকার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড গতিশীল করাসহ মানুষের কল্যাণে আধুনিক, যুগোপযোগী ও টেকসই উন্নয়নে কাজ করতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Don`t copy text!