received 3592024134347148

মোঃ আব্দুস সবুর(বালিয়াডাঙ্গী) ঠাকুরগাঁও:

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় তিন সন্তানের জননী মেধো রানী (৪০) নামে এক গৃহবধুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশ।

২৫ ফেব্রুয়ারি শনিবার রাতে উপজেলার ধনতলা ইউনিয়নের নাগেশ্বরবাড়ী উত্তরডাঙ্গাপাড়া গ্রামে থেকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মেধো রানী ওই গ্রামের চিম্মু চন্দ্র সিংহের স্ত্রী। তার তিনটি সন্তান রয়েছে এবং তার বাবার বাড়ী একই ইউনিয়নের ভান্ডারদহ গ্রামে।

ধনতলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুপুর কুমার বলেন, সকালে খবর পেয়ে আমি ঘটনা স্থলে গিয়ে দেখি মরদেহ কাঁঠাল গাছের ডালে ঝুলে আছে আমি বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করলে পুলিশ এসে শুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য অকুল কুমার সিংহ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মেধো রানী মেয়ের বাড়ী থেকে ফেরার পর ছোট মেয়েকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। তার স্বামী পাশের আরেকটি ঘরে ঘুমাচ্ছিলেন। রাতে হঠাৎ তার মেয়ে মাকে দেখতে না পেয়ে বাবাকে ডাকেন পরে অনেক খোজাখুজির পর বাড়ীর পাশে একটি কাঁঠাল গাছ থেকে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানায়।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফিরোজ কবির বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করেছে। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে মেধো রানী মানসিক রোগে ভুগছিলেন। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য হলে রাগ করে আত্মহত্যা করে । লাশ ময়না তদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও সদর আধুনিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *