মোঃ আব্দুস সবুর(বালিয়াডাঙ্গী) ঠাকুরগাঁওঃ
ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় পাঁচ বছরের প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে বিয়ের দাবিতে দুই দিন ধরে সামিউল্লাহ সামু নাকে এক শিক্ষানবিস আইনজীবি প্রেমিকের বাড়ীতে অবস্থান করছেন ২৪ বছর বয়সী প্রেমিকা নার্স।

প্রেমিক সামু উপজেলার বড়বাড়ী ইউনিয়নের বেলহাড়া গ্রামের জাহিদুল হকের ছেলে। তিনি বর্তমানে ঢাকায় শিক্ষানবিস আইনজীবি হিসেবে কাজ করছেন।

প্রেমিকা ঠাকুরগাঁওয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নার্স হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। তাঁর বাড়ী একই উপজেলার আমজানখোর ইউনিয়নের হরিনমারী উধপুর গ্রামে।

মঙ্গলবার দুপুরে গিয়ে প্রেমিকার সাথে কথা বলে জানা গেছে, দীর্ঘ ৫ বছর ধরে দুজনে মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক। বিয়ের জন্য প্রেমিকের পরিবারকে একাধিবার বললেও রাজি না হওয়ায় ঈদের পরদিন বাড়ীতে অবস্থান নিতে বলেছেন প্রেমিক সামু নিজেই। তাই তিনি প্রেমিকের বাড়িতে এসে অবস্থান নিয়েছেন। তিনি আরও বলেন,আমাদের দীর্ঘ দিনের সম্পর্কের বিষটা ওর পরিবার সবকিছু জানে এখন তারা অস্বীকার করছেন এবং তার পরিবার এখন তাকে বাসায় আসতে নিষেধ করছেন।

অবস্থানের দুদিন পেরিয়ে গেলেও প্রেমিকের দেখা না পেয়ে হতাশ হয়ে প্রেমিকা জানান, এতকিছুর পরও যদি আমার বিয়ে না হয়, তাহলে আত্মহত্যা করা ছাড়া আর কোন উপায় নেই আমার।

এদিকে প্রেমিকার অবস্থানের খবরে গা ঢাকা দিয়েছেন প্রেমিক সামিউল্লাহ সামু। তার ব্যবহৃত মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে প্রেমিক সামুর বাবা বাড়ীতে থেকে চলে যাওয়ার পর আর ফিরে আসেনি। তবে ছোট ভাই ও বাড়ীতে থাকা অন্যান্য স্বজনরা জানান, বিষয়টি সন্ধ্যায় স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করার কথা রয়েছে।

এবিষয়ে মেয়ের ভাই জানান, আমরা চাই ছেলের পরিবার আমার বোনের সম্পর্কটা মেনে নিয়ে দুজনের বিয়ে দিয়ে ঘরে তুলুক। তাছাড়া এতবড় ঘটনার পর আমার বোনকে কে বিয়ে করতে চাইবে।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আকরাম আলী বলেন, ছেলে বা মেয়ে এখনো কোন পক্ষ থেকে আমি কোন অভিযোগ পাইনি অভিযোগ পেলে বিষয়টা দেখবো।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি খায়রুল আনাম বলেন, এ ঘটনায় কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.