smart

এন,এম,সজীব স্টাফ রিপোর্টার:
❝স্মার্ট হবে স্থানীয় সরকার, নিশ্চিত করবে সেবার অধিকার❞এই প্রতিবাদ্যকে সামনে রেখে
স্থানীয় সরকার দিবস সম্পর্কে স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে প্রতিবছর জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়ছে।

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় স্থানীয় সরকার ২০২৪ ইং দিবসটি উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আজ-(২৭ ফেব্রুয়ারী) মঙ্গলবার: উপজেলা প্রসাসনের আয়োজনে বেলা সাড়ে ১২টায় বিরামপুর উপজেলা হল রুমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুজহাত তাসনীম আওনের সভাপতিত্বে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা প্রশাসনিক কর্মকর্তা আসমা বেগম এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন,উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুজহাত তাসনীম আওন,বাবু শিবেশ কুমার কুন্ডু সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী বিরামপুর উপজেলা শাখা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেজবাউল ইসলাম মন্ডল (মেজবা),উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উন্মে কুলসুম বানু,আবুল কালাম আজাদ,প্যানেল মেয়র বিরামপুর পৌরসভা,কাটলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইউনুস আলী,দিওড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক মন্ডল,খানপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চিত্তরঞ্জন পাহান,মুকুন্দপুর ইউনিয়ন  পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ,বিনাঈল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাদশা মিয়া,উপজেলা প্রকৌশলী আতাউর রহমান,সাংবাদিক হাফিজ উদ্দিন,

এছাড়াও অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নের ইউপি ওয়ার্ড সদস্য সদস্যা,গ্রাম পুলিশ সহ সাংবাদিক বৃন্দগন। উক্ত অনুষ্ঠানের মুর্খ্য আলোচনার বিষয় গুলো প্রকাশ পেয়েছে,স্থানীয় পর্যায়ে আবাদি জমি নষ্ট না করে ব্রীজ কালর্ভাট ড্রেনসহ বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কার্যক্রমের উপর বেশ কিছু দাবি উপস্থাপিত হয়েছে।

উল্লেখ্য স্মার্ট হবে স্থানীয় সরকার, নিশ্চিত করবে সেবার অধিকার এই প্রতিবাদ্যকে সামনে রেখে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোকে অধিকতর জনমুখী প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে এবং গণতান্ত্রিক চর্চা অব্যাহত রাখতে এ দিবসটি পালন করা হয়েছে। এর ফলে অধিকতর জনসম্পৃক্ততার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রাতিষ্ঠানিক এবং আর্থিকভাবে স্বনির্ভরতা অর্জনের পথ সুগম হবে। এ ছাড়াও প্রতিষ্ঠানগুলোর যেসব অংশীজন বা সুবিধাভোগী রয়েছে,তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সহজতর হবে এবং কার্যক্রমে জনসম্পৃক্ততা বাড়বে ফলে সেবা সহজীকরণে সহায়ক হবে। সার্বিকভাবে ‘জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস’ পালনে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর তৃণমূল পর্যায়ের জনসাধারণের সম্পৃক্ততা আরও বাড়বে। এতে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর জবাবদিহিতা,
কর্মতৎপরতা,গুরুত্ব ও সর্বোপরি সক্ষমতা প্রকাশ পাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *