——————————————————হাকিকুল ইসলাম খোকন ,সিনিয়র প্রতিনিধিঃ
ব্রিটেনের মন্ত্রিপরিষদের র্শীর্ষ দুই মন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন। তারা হলেন- স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ এবং অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনাক। মঙ্গলবার জনসনের সরকারকে সঙ্কটে ফেলে তারা পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। তারা প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়ে বলেন, তিনি দেশের নেতৃত্ব দেওয়ার যোগ্য নন।জাভিদ বলেন, একাধিক কেলেঙ্কারির পরে জাতীয় স্বার্থ বিবেচনা করে তারা পদত্যাগ করেন। বরিস জনসনের ক্ষমতার উপর আস্থা হারিয়েছেন তারা।

তিনি আরও বলেন, অনেক আইন প্রণেতা এবং জনসাধারণ জনসনের জাতীয় ক্ষমতার উপর আস্থা হারিয়েছেন।এদিকে ব্রিটিস দুই মন্ত্রীর পদত্যাগের বিষয়ে আল জাজিরার লন্ডন প্রতিবেদন ররি চ্যাল্যান্ডস বলেছেন, ‘এ পদত্যাগ প্রধানমন্ত্রীর জন্য দ্বিগুণ আঘাত। এ দুই পদত্যাগ, বরিস জনসনের ভবিষ্যতের জন্য ডাবল বোমা।এদিকে ব্রিটিস দুই মন্ত্রীর পদত্যাগের বিষয়ে আল জাজিরার লন্ডন প্রতিবেদন ররি চ্যাল্যান্ডস বলেছেন, ‘এ পদত্যাগ প্রধানমন্ত্রীর জন্য দ্বিগুণ আঘাত। এ দুই পদত্যাগ, বরিস জনসনের ভবিষ্যতের জন্য ডাবল বোমা।আর সাজিদ জাভিদ জানান, একের পর এক কেলেঙ্কারির পর তিনি মনে করেন না যে এই সরকারের সঙ্গে কাজ অব্যাহত রাখতে পারবেন।

তিনি বলেন, অনেক এমপি ও জনগণ জাতীয় স্বার্থ বজায় রাখার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী জনসনের ক্ষমতার ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছেন। পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ রাজনীতিক সাজিদ জাভিদ এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন।

স্বাস্থ্য ও অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগের পর বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা কিয়ের স্টার্মার বলেছেন, এটা এখন পরিষ্কার যে সরকার ভেঙে পড়ছে।

মাত্র গতমাসেই প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন তার দলের এমপিদের এক আস্থা ভোটে জয়ী হন। যদিও দলের বিশাল সংখ্যক এমপি তার বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছিলেন। এ কারণে ব্রিটিশ আইন অনুসারে আগামী এক বছর প্রধানমন্ত্রী জনসনের বিরুদ্ধে নতুন করে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করা যাবে না।

তবে কয়েকজন এমপি তাকে ক্ষমা থেকে সরানোর জন্য এই আইন পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.