জুয়েল আহমেদ :
মাত্র ৭ মাসেই সফলতা অর্জন করলেন রাসিক ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ রাসেল জামান। তিনি অল্প সময়ের মধ্যেই উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে ওয়ার্ডবাসীর মন জয় করেছেন। ওয়ার্ডের উন্নয়নমূলক কাজের অংশ হিসেবে শাহ মখদুম মসজিদের সামনে হতে লালন শাহ মুক্তমঞ্চ পর্যন্ত শহররক্ষা বাঁধের আরসিসি ঢালাই এর প্রোটেকশন ওয়াল নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। ফায়ার সার্ভিস মোড় হতে কেন্দ্রীয় ঈদগা পর্যন্ত রাস্তার কার্পেটিং কাজ চলমান। শপথ নেয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ২৫ শত জন্ম সনদ বিনামূল্যে প্রদান করা হয়েছে। যেখানে অন্যান্য ওয়ার্ডে জন্ম সনদ নিতে গেলে সনদ প্রতি গুনতে হয় ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা। নাগরিক সনদপত্র প্রায় ১৫ শত প্রদান করা হয়েছে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। নিজ অর্থায়নে ওয়ার্ডের বিভিন্ন অলিগলিতে আলোকায়নের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ বিষয়ে ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃরাশেল জামান সাক্ষাৎকারে বলেন, শপথ নেয়ার পর থেকে ওয়ার্ডের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করছি। আপনারা আমার ৯ নং ওয়ার্ড ঘুরে দেখবেন সকল অলিগলিতে নিজ অর্থায়নে আলোকায়নের ব্যবস্থা করেছি। ওয়ার্ডের সকল রাস্তা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার চেষ্টা করছি। শহর রক্ষা বাঁধের প্রটেকশন ওয়াল কাজ চলমান রয়েছে। আমার এখানে জন্ম সনদ, নাগরিকত্ব সনদসহ অন্যান্য সনদপত্র নিতে ওয়ার্ডবাসীর কোন টাকা লাগে না। আপনারা বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখবেন এসকল সনদপত্র নিতে জনগণকে অনেক ভোগান্তির শিকার হতে হয়, টাকা ছাড়া সনদপত্র হাতে পাইনা। কিন্তু আমার এখানে বিনামূল্যে সকল ধরনের সনদ পত্র দেয়া হয়। আমার কাজের সফলতার জন্য ওয়ার্ডবাসী আমাকে ভালোবেসে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে উৎসাহ দিয়েছেন। আমি আমার ৯ নং ওয়ার্ড আগের চেয়ে ৭০ শতাংশ উন্নয়নের মাধ্যমে পরিবর্তন করেছি। আমি চাই আমার ওয়ার্ডের জনগণ ভালো থাকুক,আমি যেন সব সময় তাদের সেবায় নিয়োজিত থাকতে পারি। একাধিক স্থানীয়রা বলছেন, মোঃ রাসেল যেমন শপথ নেয়ার পর থেকে ৯ নং ওয়ার্ডের নানামুখী উন্নয়নের মাধ্যমে চেহারা পাল্টে দিয়েছেন। আমরা ভবিষ্যতেও ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হিসেবে মোঃ রাশেল জামান কে দেখতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.