জেলা প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের সর্ববৃহৎ খনিসম্পদ খ্যাত বালু মিশ্রিত পাথর মহাল যাদু কাটা নদীর ইজারা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য জানতে তথ্য অধিকার আইনে (‘ক’ তথ্য প্রাপ্তি সংক্রান্ত বিধিমালার বিধি ৩ এর বিধান বলে) আবেদন করেছেন “তথ্য অধিকার ফোরামের যুগ্ম-আহ্বায়ক, মানবাধিকার কর্মী, সাংবাদিক মোঃ আফজাল হোসেন”। তিনি গত ২২ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিঃ তারিখে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মোহন মিনজি বরাবর এই আবেদন করেন তিনি। লিখিত আবেদনে “তথ্য অধিকার ফোরামের যুগ্ম-আহ্বায়ক, মানবাধিকার কর্মী, সাংবাদিক মোঃ আফজাল হোসেন” যেসকল তথ্য জানতে চেয়েছেন, ২০২২-২০২৩ অর্থ বছরে যাদুকাটা নদীর ইজারার সরকারি রয়েলিটি দর কত নির্ধারণ করা হয়েছে এবং তা কি প্রক্রিয়ায় উত্তোলিত হয়। এছাড়া উক্ত মহালটিতে প্রশাসনিক নজরদারি আছে কি? যাদুকাটা নদীতে কোন প্রক্রিয়ায় ইজারা প্রদান করা হয়েছে। যাদুকাটা নদীতে কি পরিমাণ জায়গায় ইজারা প্রদান করা হয়েছে বর্ণনা স্বরুপ এর পূর্ণ বিবরণ। যাদুকাটা বালু মহালটি কি পদ্ধতিতে কোন কোন প্রতিষ্ঠান ইজারা প্রাপ্ত হয়েছে এবং কয়টি প্রতিষ্ঠান নিলাম ইজারায় অংশ নেয়। সে সকল প্রতিষ্ঠানের বিবরণ। যাদুকাটা নদীতে বালু ব্যাতিত অন্য কোন খনিজ সম্পদ উত্তোলিত করে বিক্রয় ও রয়েলিটি গ্রহণ করিলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে কি? এসব তথ্য জানতে চেয়ে আবেদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দরখাস্তকারী সাংবাদিক মোঃ আফজাল হোসেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!