অনলাইন ডেস্ক :
রাজশাহীতে দ্বায়িত্বরত ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনার সঞ্জীব কুমার ভাটি’র বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি ২০১৯ সালের ১ মার্চ যোগদানের কিছুদিন পর থেকে রাজশাহীর বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে প্রভাব খাটানোসহ ও দুর্নীতি করেছেন বলে জানা গেছে।

তথ্যসূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জন্য ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ৩০ টি কম্পিউটার ও ৫ টি প্রিন্টার দেওয়া হয় এবং আনুষ্ঠানিকভাবে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে উপহারটি তুলে দেন ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনার সঞ্জীব কুমার ভাটি। সেই কম্পিউটার ও প্রিন্টার সাপ্লাই এর কাজটি দেয়া হয় রাজশাহীর নিউমার্কেট অবস্থিত Update Computer এর স্বত্বাধিকারী রাজু আহমেদকে।

রাজু আহমেদ নিম্নমানের কম্পিউটার ও প্রিন্টার দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন এমন অভিযোগ উঠলে সরবরাহকারী রাজু আহমেদ মিডিয়ার কাছে মুখ খুলেন এবং আসল তথ্য ফাঁস করেন। এতেই প্রকাশ পায় ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনারের দুর্নীতি।

জানতে চাইলে রাজু আহমেদ বলেন, আমাকে একবারে টাকা দেয়নি, বারে বারে দিয়েছে। আর আমাকে যত টাকা দিয়েছে তা নগদ পেমেন্ট। প্রতিটি কম্পিউটারে মূল্য কত ছিল জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কম্পিউটার ব্যবসায়ী বলেন, ঐ মানের কম্পিউটার সর্বোচ্চ ৪০-৫০ হাজার টাকা লাগবে।

অথচ এস.কে ভাটি প্রতিটি কম্পিউটারের বিল দেখিয়েছেন লক্ষাধিক টাকা বলে অভিযোগ আছে। রাজু আহমেদ এর কাছে এই কম্পিউটার ও প্রিন্টার সরবরাহের বিলের কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি নানা অজুহাতে এড়িয়ে যান। এমনকি Update Computer এ গত ৩০/০৫/২০২২ উপস্থিত হয়েও প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ পাওয়া যায় এবং রাজু আহমেদের সাথে যোগাযোগের জন্য মোবাইলে বারবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে পরষ্পরের যোগসাজশে ভাটি দুর্নীতিই করেননি সাথে তিনি বড় অনিয়মও করেছেন। তিনি ঐ কম্পিউটার সাপ্লায়ারকে অফিসে ডেকে সরাসরি হাতে নগদ টাকা দিয়ে। (ঐ ব্যবসায়ীর স্বীকারোক্তিমূলক ফোন রেকর্ড মিডিয়া কর্মীর হাতে সংরক্ষিত)।

কম্পিউটার ও প্রিন্টার কেনার ক্ষেত্র এস.কে ভাটি বড় ধরনের নিয়ম লঙ্ঘন করে অনিয়ম করেছেন। কারন অফিসিয়াল নিয়ম অনুযায়ী ২৫০০০ (পঁচিশ হাজার) টাকার উর্ধ্বে হলে অবশ্যই ব্যাংকের মাধ্যমে লেনদেন করতে হবে। এছাড়াও ২,৫০,০০০ (আড়াই লক্ষ) টাকার উর্ধ্বে হলে অবশ্যই পত্রিকা বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে টেন্ডারের মাধ্যমে কাজ করাতে হবে, যা তিনি করান নি।

এবিষয়ে রাজশাহীতে দ্বায়িত্বরত ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনার সঞ্জীব কুমার ভাটি’র সাথে মুঠোফোনে বার বার যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে ৩১ মে ২০২২ তার দাপ্তরিক শেষ দিন। অর্থাৎ তিনি এখান থেকে বিদায় নিয়ে চলে যাচ্ছেন। কোন সমস্যা না থাকলে জুনের শুরুতে তিনি বাংলাদেশ ছেড়ে দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হবেন বলে সূত্র নিশ্চিত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.