জুয়েল আহমেদ :
পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে হঠাৎ করেই অটোরিকশা চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে চালক -মালিকদের একটি পক্ষ। এতে করে চরম অসুবিধায় পড়েছে যাতায়াতকারী ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। রোববার (২৮ আগস্ট) ভোর থেকেই অটোচলাচল বন্ধ হলে এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে গুটি কয়েক অটোচালক যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করার অভিযোগ উঠেছে।

অপরদিকে অটোরিকশা চলাচল না করায় সময় মত পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ না করতে পেরে রাজশাহী পলেটেকনিকের শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। এতে করে মহাসড়কে যানজন সৃষ্ঠি হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এমন অবস্থায় নগরবাসী ইন্টারসিটি বাস সার্ভিসের দাবি জানিয়েছেন।


রাস্তায় চলাচলরত অটোচালকরা জানান, আমরা সকালে গ্যারেজ থেকে গাড়ী বের করার পর রস্তায় চাকার হাওয়া ছেড়ে দিয়েছে। এতে করে যাত্রী নিয়ে বিপদে পড়েছি। আগে থেকেই আমাদের ভাড়া বাড়ানো বা অটো চলাচল বন্ধ বিষয়ে জানানো হয়নি। অটোচালকদের একটি পক্ষই রাস্তায় বিভিন্ন মোড়ে অবস্থান নিয়ে এমন কাজটি করছেন।রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্যকর্মী জলি খাতুন। রবিবার সকালে রাজশাহী নগরীর টুলটুলি পাড়ায় অবস্থিত স্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্দেশ্যে রাস্তায় বের হয়ে তিনি বিপাকে পড়েন। রাস্তায় কোন ব্যাটারি চালিত অটো রিক্সা না দেখে তিনি ঘাবড়ে যান। হাতেগোনা যে দুই একটি ব্যাটারি চালিত রিকশা চলাচল করছে তাদের একটিতে চড়তে গেলে তার কাছে ভদ্রার মোড় থেকে রেল গেটের ভাড়া চাওয়া হয় বিশ টাকা। স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে এই ভাড়া পাঁচ থেকে সাত টাকার মধ্যে থাকে। বিনোদপুরের বাসিন্দা রাহাত জানান, অটো না থাকায় তিনি ভ্যানে করে বিনোদপুর থেকে রেলগেটের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। রিক্সায় তার কাছে ভাড়া চাওয়া হয়েছে ৮০ টাকা। যা স্বাভাবিক অবস্থার চাইতে দ্বিগুণ।


কাটাখালি এলাকার বাসিন্দা রাশেদ। সাহেব বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আজকের সকালের দুর্ভোগের পর রাশেদের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান এই মুহূর্তে রাজশাহী নগরীতে স্বল্প পরিসরে হলেও ইন্টারসিটি বাস সার্ভিস চালু করা জরুরি। ব্যাটারি চালিত অটো এবং রিকশাগুলো রাজশাহী নগরীতে একদিকে যেমন যানজট সৃষ্টি করছে অন্যদিকে যখন তখন তাদের এরকম ভাড়া বৃদ্ধির অযৌক্তিক দাবিতে বিপাকে পড়ছেন নগরবাসী।

এদিকে হঠাৎ অটো চলাচল বন্ধ হওয়ায় বিকল্প যান হিসেবে নগরীতে ভ্যানে করে অধিকাংশ যাত্রীদের গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যাত্রা করতে দেখা গেছে। দুপুর ১২ টার দিকে রাজশাহী নগর ভবনের সামনে দ্রব্যমূল্য ও অটোপার্টস এর দাম বৃদ্ধির কারণে অটোর ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে একটি পক্ষ।


ব্যাটারি চালিত অটো মালিক সমিতির সভাপতি সাগর দাবী করেন, তাদেরকে না জানিয়েই একটি পক্ষ ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে হঠাৎ অটো চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। আমরা এই বিষয়ে জানিনা বা জড়িত না। নওদাপাড়া ও তেরখাদিয়া ডাবতলা মোড়ে একটি সংগঠন আমার কাছে এসেছিলো। আমি তাদের কথায় পাত্তা দেয়নি। তাদের নাম ও সংগঠনের নাম জানতে চাইলে সাগর বলেন, এসবের পেছনে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের কয়েকজন কাউন্সিলর ইন্ধন দিচ্ছেন। আমি রাসিক মেয়রের সাথে আলোচান করে কারা জড়িত তাদের নাম বলতে চাই তারপর সাংবাদিকদের জানাবো বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!