মোঃ ইকবাল মোরশেদ স্টাফ রিপোর্টার।

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ইলেক্ট্রিশিয়ান জলিল সর্দার হত্যা মামলায় হারুন রশিদ নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ সময় ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এ ছাড়া সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ না পাওয়ায় ওই মামলায় অপর ৩ জনকে খালাস দেয়া হয়েছে।
মঙ্গলবার (২৮ জুন) দুপুরে লক্ষ্মীপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মুহাম্মদ রহিবুল ইসলাম এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামিরা কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

নিহত জলিল সর্দার রায়পুরের উদমারা গ্রামের সিরাজ সর্দারের ছেলে। তিনি পেশায় ইলেক্ট্রিশিয়ান মিস্ত্রি ছিলেন। দণ্ডিত মোঃ হারুনুর রশিদ উপজেলার চরবংশী ইউনিয়নের মোঃ হযরত বেপারীর ছেলে।

খালাসপ্রাপ্তরা হলেন- মোঃ আবুল কালাম ওরফে কালু ব্যাপারী, মোঃ জাহিদ ওরফে আবুল কাশেম, মোঃ তোফায়েল পালোয়ান ও মোঃ আক্তার হোসেন।

লক্ষ্মীপুর জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট মোঃ জসীম উদ্দিন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের ৫ জানুয়ারি রাতে হারুনুর রশিদ পাশের বেড়িবাঁধের পাশে মোবাইল ফোনে ডেকে নেয় জলিলকে। এরপর থেকে জলিল নিখোঁজ ছিলেন। পরদিন বেলা ১১টার দিকে আওয়াল দেওয়ানের ধানক্ষেত থেকে মোঃ জলিলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
এ ঘটনায় নিহতের বাবা সিরাজ সর্দার ৫ জনকে আসামি করে মামলা করেন।
পরে ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি মামলা থেকে আক্তার হোসেনকে অব্যাহতি দিয়ে ৪ জনের নামে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত ৩ জনকে খালাস ও যুবক হারুনুর রশিদকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.