“সমন্বিত ব্যবস্থাপনা ও উদ্যোগই কোভিড-১৯ প্রতিরোধের বড় হাতিয়ার”

 

বি এম আশিক হাসান, সিনিয়র রিপোর্টার

 

কেয়ার বাংলাদেশ ও মার্কস এন্ড স্পেনসার এর যৌথ উদ্যোগে গাজীপুরের ছুটি রিসোর্টে ৩১ টি রপ্তানীমুখী তৈরি পোষাক শিল্প ব্যবস্থাপকদের সাথে দিনব্যাপি কোভিড ১৯ প্রতিরোধ কার্যক্রম বিষয়ক একটি অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উদ্বোধন ও বক্তব্য প্রধান কেয়ার বাংলাদেশে হল্থ ইউনিটের পরিচালক ড: ইখতিয়ার উদ্দিন খন্দকার এসময় তিনি বলেন- “সমন্বিত ব্যবস্থাপনা ও উদ্যোগই কোভিড-১৯ প্রতিরোধের বড় হাতিয়ার”

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এমএন্ডএস এর সিনিয়র কম্প্লায়েন্স ম্যানেজার মিজানুর রহমান, সিনিয়র টেকনিক্যাল কোর্ডিনেটর (টিম লিড) মোঃ হাফিজুল ইসলাম, আরবান হেলথ ইউনিট, কেয়ার বাংলাদেশ অভিজ্ঞতা বিনিময় সভার নির্ধারিত আলোচনা উত্থাপন করেন। তাছাড়াও তিনি উৎপাদনের সাথে কোভিড ১৯ প্রতিরোধ ব্যবস্থা অব্যাহত রাখার উপর জোর দেন ও নগর পুষ্টি পরিস্থিতির উপর আলোকপাত করেন। রাজিমুল আলী কেয়ার বাংলাদেশ কর্তৃক প্রস্তাবিত অনলাইনভিত্তিক জরুরী যোগাযোগ ব্যবস্থাপনা প্ল্যাটফর্মটি কিভাবে কাজ করবে তা তুলে ধরেন। আলোচনায় কেয়ার বাংলাদেশের ফেসিলিটেশনে মার্কস অ্যান্ড স্পেনসার বাংলাদেশ অফিসের আগ্রহে, গাজীপুরে তাদের গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে কোভিড ১৯ টিকা কার্যক্রমের শুরু থেকে এ পর্যন্ত অগ্রগতি; এবং দুইটি প্রতিষ্ঠানের যৌথ চেষ্টায় পোষাক শ্রমিকদের জন্য কোভিড ১৯ টিকা সুরক্ষা নিশ্চিতকরনের মাধ্যমে নিরবচ্ছিন্ন শিল্প উৎপাদন অব্যাহত রাখা সম্ভব হওয়ার বিষয়টি আলোচিত হয়।

এরপর একটি উন্মুক্ত প্রশ্নোত্তর পর্ব ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়; উক্ত সেসনটি মনীষা মাফরুহা, টেকনিক্যাল কোর্ডিনেটর, ইসিএম প্রকল্প সঞ্চালনা করেন। এ পর্যায়ে পোষাক শ্রমিকদের জন্য ফ্যাক্টরিতে টিকা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে যেয়ে ফ্যাক্টরীগুলো কি কি ধরনের বাধার মুখে পড়েন ও কিভাবে সেসব বাধা সফলতার সহিত অতিক্রম করেন সে বিষয়ে ব্যবস্থাপকগণ মত বিনিময় করেন। আলোচনায় বেশ কয়েকজন রপ্তানীমুখী তৈরি পোষাক ব্যবস্থাপক তাদের অভিজ্ঞতা ব্যক্ত করেন। সভায় টিকা প্রাপ্ত সকল শ্রমিককে রেজিষ্ট্রেশনের আওতায় আনার উপর গুরুত্বারোপ করা হয়। সভায় অতিমারি কোভিড ১৯ এর প্রভাব তৈরি পোষাক শিল্পে সহনীয় মাত্রায় রাখতে এই ত্রিপক্ষীয় সমন্বিত উদ্যোগের বিভিন্ন সাফল্য ও স্বীকৃতির কথা আলোচনা হয়। অংশগ্রহণকারীরা স্বতস্ফুর্তভাবে আলোচনায় অংশ নেন। বিশেষত করোনা টিকা শতভাগ মানুষকে প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকারের পরিচালিত বিভিন্ন কর্মসূচিতে গার্মেন্টস ফ্যাক্টরী সরকার ও কেয়ার বাংলাদেশের আহবানে লোকবল দিয়ে যে সহযোগিতা করেন তার জন্য সংশ্লিস্ট ফ্যাক্টরীকে ধন্যবাদ প্রদান করা হয়। সেই সাথে শ্রমজীবী জনগোষ্ঠীর জীবন মানের উন্নয়ন, ইতিবাচক অভ্যাস রপ্তকরন ও জেন্ডার বৈষম্য বিলোপের লক্ষে গাজীপুরস্থ রপ্তানীমুখী বিভিন্ন তৈরি পোষাক কারখানায় প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে কেয়ার বাংলাদেশ ও শিল্প মালিকদের মধ্যে দীর্ঘদিনের অংশীদারিত্বের বিষয়টি আলোচনা করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন তানজিন কিবরিয়া লাবন্য ।

অন্যান্যদের মধ্যে এমএন্ডএস এর কর্মকর্তা জনাব রাশেদ মাহমুদ ও জনাব হাসান খন্দকার এবং কেয়ার বাংলাদেশের প্রকল্প কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.