সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় নিজ ঘরে বিয়ের পরের দিন  রতন প্রামানিক (২২) নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। বুধবার (১৫ জুন) সকালে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।
রতন প্রামানিক সলঙ্গা ইউনিয়নের সাত টিকরি দক্ষিণপাড়া গ্রামের জয়নাল প্রামানিকের ছেলে। তিনি পেশায় একজন টাইলস মিস্ত্রি।
প্রতিবেশী আব্দুল কুদ্দুস বলেন, সোমবার জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার কয়ড়া গ্রামের আসাদুল প্রামানিকের মেয়ে আয়শা খাতুনকে বিয়ে করে রতন। তার পরের রাতেই ফাঁস দেওয়া অবস্থায় তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তবে আমার জানা মতে, তাদের সংসারে কোনো সমস্যা নেই। তবে বিয়ে করার পর হঠাৎ কী হলো তা বলতে পারছি না।
রতনের বড় বোন  রত্না খাতুন জানান, মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে রতনকে ঘরে রেখে আসলাম। সকাল ৫ টার দিকে ওকে ডাকতে যাই। পরে তার নতুন বউ ঘর খুলে দেয়। খোলার পরে ভেতরে গিয়ে দেখি, ঘরের আড়ার সাথে রতনের মরদেহ ঝুলে আছে। বউকে জিজ্ঞেস করলে সে জানায়, সে মাত্রই এটা দেখল।
নব বধু রতনের স্ত্রী আয়শা খাতুন বলেন, রাত সাড়ে ১১টার দিকে আমি ঘুমিয়ে পড়ি। তখন রতন মোবাইলে গান শুনছিল। এর মাঝে আমি আর কিছুই জানি না। সকালে আপা (ননদ) এসে ডাক দিলে দরজা খুলি। তখন ঘরে আলো আসলে রতনকে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলে থাকতে দেখি।
সলঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের জিলানী  জানান, আমি ঘটনাস্থলেই আছি। মরদেহের সুরুতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে। সবার সঙ্গে কথা বলে প্রাথমিকভাবে মৃত্যুর কারণ আত্মা হত্যা করেছে বলে নিশ্চিত হয়েছি। মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!