জেলা প্রতিনিধি
::সুনামগঞ্জে ভয়াবহ বন্যায় দুর্গত ও ক্ষতিগ্রস্ত অন্তত ১০ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নোমান বখত পলিন।সুনামগঞ্জে ভয়াবহ বন্যায় দুর্গত ও ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় ১০ হাজার পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী সহায়তা দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নোমান বখত পলিন। বন্যার শুরু পর থেকে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের আরপিননগর, সোমপাড়া, রায়পাড়া, মোক্তারপাড়া, নতুনপাড়া, বিলপাড়া, নবীনগর, ষোলঘর, হাছননগর, উকিল পাড়া, সুলতানপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় দুর্গতদের খাদ্য সহায়তা দেন আওয়ামীলীগ নেতা। এছাড়া সদর উপজেলার ধাড়ারগাঁও, গোদারগাঁও, লালারচর ও বেতগঞ্জ বাজারে দুর্গত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয় তার পক্ষ থেকে।জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো. সুয়েব চৌধুরী তাঁজা খবরকে জানান, ভয়াবহ বন্যার শুরুর পর থেকে নোমান বখত পলিন দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়ান। বানের পানিকে উপেক্ষা করে অনেক পরিবারকে আশ্রয়কেন্দ্রে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। নৌকা দিয়ে সহযোগিতা করেন। পাশাপাশি দুর্গত মানুষকে রান্না করা খাবার, শুকনো খাবার, কলা, পানি ও মোমবাতি দিয়ে সহযোগিতা করেন তিনি আরো বলেন, পরবর্তীতে স্বেচ্ছাসেবীদের সহযোগিতায় শহর ও শহরতলীর বিভিন্ন এলাকায় বন্যা দুর্গতদের চাল, ডাল, তেল, পেয়াজ, লবণসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী প্রদান করেন।এছাড়া বন্যার পানিতে বাসাবাড়িতে আটকে পড়া লোকজনকে উদ্ধারেও সহায়তা করেন পলিন বখত্। তাঁর এ কাজে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা সহযোগিতা করেন। উল্লেখ্য, সুনামগঞ্জে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম প্রধান সংগঠক প্রয়াত হোসেন বখতের পুত্র নোমান বখত পলিন। তাঁর প্রয়াত দুই ভাই সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ছিলেন। অপর ভাই নাদের বখত রয়েছেন বর্তমান মেয়রের দায়িত্বে।নোমান বখত পলিন তাঁজা খবরকে বলেন, এক সময় সক্রিয় ছাত্ররাজনীতি করতাম। পরে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাই। দুই বছর ধরে দেশে আছি। জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে জেলা আওয়ামী লীগে সহ-সভাপতি পদে কো-অপ্ট করেছেন।তিনি বলেন, দুর্দশাগ্রস্ত, দুর্গত মানুষের সেবা করা আমার পরিবারিক শিক্ষা। আমার প্রয়াত পিতা তাঁর তিন সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে সরাসরি মুক্তিযুদ্ধ করেন। বড়ভাই পৌর চেয়ারম্যান মনোয়ার বখন নেক আগুন নেভাতে গিয়ে আহত হয়ে মারা যান। অপর প্র‍য়াত ভাই পৌর মেয়র আয়ুব বখত জগলুলের সততা ছিল প্রশ্নাতীত তিনি বলেন, বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়িয়ে আমি তাঁদের কাজের ধারাবাহিকতা রক্ষার সামান্য চেষ্টা করে যাচ্ছি। এখানে আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই।তিনি আরো বলেন, এই বিশাল ত্রাণ কার্য বাস্তবায়নে আমার ব্যক্তিগত অর্থায়নের পাশাপাশি আমার পরিবারের সদস্যরা এবং কিছু ঘনিষ্ঠ বন্ধুবান্ধব ও রাজনৈতিক সহযোদ্ধা সহযোগিতা করছেন। তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.