জেলা প্রতিনিধি ::
পরিকল্পনামন্ত্রী আলহাজ্ব এমএ মান্নান এমপি বলেছেন বর্তমান সরকার গ্রাম শহরের ব্যবধান কমিয়ে এনে পিছিয়ে পড়া যে সমস্ত জেলাগুলো রয়েছে সেদিকে খেয়াল করেই ঐ সমস্ত অনুন্নত জেলাড়গুলোর উন্নয়নে অগ্রাধিকার দিয়ে সারা বাংলাদেশের গ্রামগুলোতে সুষম উন্নয়ন সাধিত করেই পুরো দেশকে উন্নত দেশে পরিণত করতে চান আমাদের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি বলে দেশে বর্তমানে বর্হিবিশ্বে যেখানে জ্বালাতি তেল ও দ্রব্যমূল্যের উধর্বগতি চলছে সেখানে আমাদের মতো দেশে এই সমস্যাটা চলা স্বাভাবিক তবে এই আগষ্ট মাসই হবে জনসাধারনের র্দূভোগের মাস আগামী মাস থেকে দেশে জ্বালানী তেলের সংকট,বিদ্যুৎ সমস্যা ও দ্রব্যমূল্যে সরকার নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন আমাদের প্রবাসীদের অর্থ দিয়েই আমাদের রিজার্ভ ভাল আছে। আনুমানিক ৪০ এর কাছাকাছি আছে,আগামীতে আরও বাড়বে। তিনি বলেন আমার শান্তিগঞ্জের নিজের পৈতিক ভিটাটি পর্যন্ত সরকারকে দান করেছি। আমার কোন সহায় সম্পত্তি আর ভোগ বিলাসীতার প্রয়োজন নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন সুনামগঞ্জ জেলার উন্নয়নের জন্য সব কিছুই করা হবে। জেলা প্রমাসনের মাধ্যমে জায়গা খোঁজা হচ্ছে ছোট বিমান বন্দন নির্মাণের জন্য এবং এই বিমান বন্দর হলে দেশী বিদেশী পর্যটক ও ব্যবসায়ীদের আনাগোনা বাড়বে । তিনি এস এস সি ও এইচ এস সি পরীক্ষায় জিপিএ -৫ প্রাপ্তদের উদ্দেশ্য বলেন নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে ভালভাবে পড়াশুনায় মনোনিবেশ করতে হবে তখনই কেবল একজন সুনাগরিক হয়ে দেশসেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করা যাবে।
তিনি আজ শনিবার দুপুরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ কর্তৃক শহরের নতুন শিল্পকলা একাডেমির হলরুমে এস এস সি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ১৭৫ জনকে ৬ হাজার টাকা ১০ লাখ ৫০ হাজার এবং এইচ এস সি পরীক্ষায় ১০১জনকে ৮ হাজার টাকা করে করে নগদ মোট ৮ লাখ ৮০ হাজারসহ মোট ১৯ লাখ ৩০ হাজার টাকা প্রদান উপলক্ষে আলোচনা সভা,ক্রেষ্ট ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এসব কথা বলেন।
সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল হুদা মুকুটের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, পুলিশ সুপার ও সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ মিজানুর রহমান বিপিএম, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল ওয়াহাব রাশেদ, সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ পরিমল কান্তি দে, শিক্ষাবিদ যোগেশর দাস প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন,জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল,জেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এড. আজাদুল ইসলাম রতন,শিক্ষা ও মানব সম্পাদক সম্পাদক সীতেশ তালুকদার মঞ্জু,তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক অমল কান্তি কর জেলা শ্রমিকলীগের সাবেক সভাপতি মো. ফজলুর রহমান,মন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব হাসনাত হোসাইন,শান্তিগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক নুর হোসেন,যুবলীগ নেতা পাভেল আহমদ,জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দিপংঙ্কর কান্তি দে, সহ সভাপতি অমিয় মৈত্র ও সহ সভাপতি সামছুল আবেদীন রাজন প্রমুখ। ##
আমির হোসেন
জেলা প্রতিনিধি
২০.০৮.২০২২

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!