আহসান হাবীব স্টাফ রিপোর্টারঃ-



নোয়াখালী সুবর্ণচরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে নাগর মাঝি(৬০) নামের এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে করার অভিযোগ উঠেছে বেলাল ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে। ২৩ জুলাই (শনিবার) বিকাল ৩ ঘটিকার সময় উপজেলার ৫নং চর জুবিলী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড মধ্যম বাগ্যা গ্রামের ছিদ্দিক মেম্বার এর দোকানের পশ্চিমে রুহুল আমিন মাঝির বাড়ির দরজায় ঐ ব্যক্তির উপর হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত নাগর মাঝি বলেন, আমি মাইন উদ্দিনের খামারে কাজ করি, পাইকারি দোকান থেকে টাকা কালেকশন করে আনার সময় পূর্ব পরিকল্পিতভাবে একই গ্রামের দু্লাল হোসেন এর পুত্র বেলাল হোসেন (৪০), রুহুল আমিন এর পুত্র সোহেল (৩৫), শাহাদাত (২৬), চৌধুরী (৩৪), সুহিজল মাঝির পুত্র সালেহ উদ্দিন (৩২), মাহফুজুল হকের পুত্র মোসলেহ উদ্দিন (৩৮), বাবুল মাঝির পুত্র মানিক(২৪) সহ অজ্ঞাত ৭/৮ জনের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী আমার উপর দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হামলা করে আমাকে আহত করে, স্থানীয় লোকজন আমাকে উদ্ধার করে চরজব্বার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

অভিযুক্ত বেলাল হোসেন মুঠোফোনে জানান, গত কয়েকদিন আগে নাগর আলী ও তার লোকজন আমাকে পিটিয়ে আহত করে, আমি কয়েকদিন হাসপাতালে ও ভর্তি ছিলাম। পরে একাধিকবার ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়নি, তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

চরজুবলী ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার মঞ্জুর আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে নাগর আলীকে পিটিয়ে আহত করে বেলাল।

সাবেক ইউপি সদস্য খলিল বলেন, বেলাল উগ্র মেজাজের লোক সে এলাকায় কাউকে মানেনা, জমি দখল, মিথ্যা মামলা দিয়ে মানুষকে হয়রানী ও নানা অসামাজিক কর্যকলাপের সাথে জড়িত, ঘটনার পর পরই আমি চরজব্বর থানায় ফোন করলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, বেলাল দীর্ঘদিন ধরে অন্যের জমি দখল করে আসছে যার কাছ থেকে জমি কিনেছে তাকেও জমির টাকা দেয়া হয়নি, সে এলাকার বিচার ব্যবস্থা মানেনা।

চরজব্বার থানার এস আই মনির হোসেন জানান, আমি ওখান দিয়ে অন্য একটা মামলার কাজে যাচ্ছেলাম, ছিদ্দিক মেম্বার এর দোকানের পাশে একটা বৃদ্ধ লোককে মারতে দেখে স্থানীয় লোকজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেই, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঘটনার বিষয়ে থানায় মামলা করার। প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেও জানান ভুক্তভোগী নাগর আলী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.