নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ড ও বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতদের মধ্যে ২২ জনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বাকিদের পরিচয় শনাক্তে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

 

রবিবার রাত থেকে সোমবার সকাল ১০টা পর্যন্ত এসব মরদেহ হস্তান্তর করা হয় বলে জানিয়েছে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের দপ্তরের এনডিসি তৌহিদুল ইসলাম জানান, হস্তান্তরের সময় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের পরিবারকে দুই লাখ টাকা এবং দাফন-কাফনের সব খরচ দেওয়া হচ্ছে।

 

যাদের মরদেহ এখনও শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি, তাদের স্বজনদের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে বলে জানান তৌহিদুল ইসলাম।

 

পরিচয় শনাক্ত হয়নি- এমন মরদেহের পরিচয় শনাক্তের জন্য ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ শুরু করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। সকাল সাড়ে ৯টায় ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ শুরু হয়।

 

চমেক হাসপাতালের সেবা তত্ত্বাবধায়ক মোছা. ইনসাফি হান্না জানান, অনেকের চেহারা পুড়ে বিকৃত হয়ে গেছে, যা শনাক্ত করা সম্ভব নয়। তাদের স্বজনরা হাসপাতালে যোগাযোগ করলে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নমুনা নেওয়া হবে।

 

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সীতাকুণ্ডের বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন লেগে রাসায়নিক থাকা কনটেইনারে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। ভয়াবহ এ অগ্নিকাণ্ডে এখন পর্যন্ত ৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন দুই শতাধিক।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.